বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১১ এপ্রিল ২০১৬

ইনমাস, শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ক্যাম্পাস,বরিশাল

বাংলাদেশ পরমাণু শক্তি কমিশনের পরমাণু চিকিৎসা কার্যক্রম বাস্তবায়নের অব্যাহত ধারায় দক্ষিণাঞ্চলের জনগোষ্ঠির কাছে পরমাণু চিকিৎসা ও আল্ট্রাসাউন্ড সেবা পৌঁছানোর লক্ষ্য নিয়ে ১৯৮৯ খ্রিস্টাব্দে ইনষ্টিটিউট অব নিউক্লিয়ার মেডিসিন এন্ড এ্যালাইড সাইন্সেস, বরিশাল কেন্দ্রটি শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল চত্ত্বরে স্থাপিত হয়। জন্মœলগ্ন থেকে কেন্দ্রটি বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন জেলাসহ আশপাশের বিভিন্ন জেলার মানুষকে সেবা দিয়ে যাচ্ছে।
 
প্রধান কার্যক্রমঃ
 
(১) চিকিৎসা সেবা-    
            ক) রোগ নির্ণয়
            খ) রোগ নিরাময়
 (২) গবেষণা ও শিক্ষা কার্যক্রম
  
সুবিধাসমূহঃ

১) গামা ক্যামেরা (উঁধষ ঐবধফ ঝচঊঈঞ -১টি, ঝরহমধষ ঐবধফ ঝচঊঈঞ- ১টি)
২) ইগউ মেশিন -১টি
৩) অত্যাধুনিক আল্ট্রাসাউন্ড মেশিন (৪উ এবং কালার ডপলারসহ) - ৩টি             
৪) রেফ্রিজারেটেড সেন্টিফিউজ
৫) জওঅ কাউন্টার
৬) ডোজ ক্যালিব্রেটর, সার্ভেমিটার
 
চিকিৎসা সেবা
 
রোগ নির্ণয়ঃ
 
১। সিন্টিগ্রাফিঃ 
 
তেজস্ক্রিয় আইসোটপ ব্যবহার করে বোন স্ক্যান, রেনাল স্ক্যান, রেনোগ্রাম, থাইরয়েড  স্ক্যান নিয়মিত করা হয়।

২। আল্ট্রাসনোগ্রাফী  ও  কালার ডপলারঃ

(ক) পেটের বিভিন্ন অংশের পরীক্ষাসহ গর্ভস্থ  ভ্রƒনের অবস্থা, শিশু ব্রেইন, থাইরয়েড   গ্ল¬্যান্ড, অন্ডকোষ, ¯তন, চক্ষু গোলক ও টিভি স্ক্যান করা হয়।
(খ) ক্যারোটিড, হাত ও পায়ের রক্তনালীর ও শরীরের বিভিন্ন  অঙ্গের  রক্তনালীর পরীক্ষা করা হয়ে থাকে।

৩। আরআইএঃ 
কেন্দ্রের আরআইএ ল্যাবে  রক্তের  ঞ৩ , ঞ৪ , ঞঝঐ,  ঋঞ৪, ঋঝঐ, খঐ, চৎড়ষধপঃরহ,  চৎড়মবংঃবৎড়হব, ঞবংঃড়ংঃবৎড়হব,  হরমোনসমূহ নির্ণয় করা হয়।      এছাড়াও রক্তের ঞম,ঞমঅন, ঞসঅন ইত্যাদি পরীক্ষাও করা হয়।

রোগ নিরাময়ঃ
 
(ক) ‘ আয়োডিন- ১৩১’ দ্বারা চিকিৎসা ঃ ‘থাইরয়েড’ গ্রন্থির ক্যান্সার ও অতিক্রিয়াজনিত অবস্থায় ‘আইয়োডিন- ১৩১’ দ্বারা চিকিৎসা করা হয়। 
(খ) ‘ আয়োডিন- ১৩১’ দ্বারা চিকিৎসাধীন রোগীদের পর্যবেক্ষণ: চিকিৎসাত্তোর পরবর্তী জীবনের জন্য পর্যবেক্ষণ  ও    পরামর্শ প্রদান করা হয়।
(গ) ‘ বিটা - রেডিয়েশন ’ দ্বারা চিকিৎসা :  চোখের ‘টেরিজিয়াম’ অপারেশন-পরবর্তী অবস্থায় প্রবৃদ্ধি বন্ধ করার  উদ্দেশ্যে  ‘ষ্ট্রোনোশিয়াম-৯০’ উৎস দ্বারা  ‘বিটা- রেডিয়েশন’প্রদান করা হয়।
 
 অত্র ইনস্টিটিউট হতে আগুনে পোড়া রোগীদের চিকিৎসার জন্য “অ্যামনিওটিক মেমব্রেন”  সরবরাহ করা হয়।

গবেষণা ও শিক্ষা কার্যক্রমঃ
 
 গবেষণাঃ 
অত্র ইনস্টিটিউটে নিয়মিতভাবে গবেষণা কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। এসব গবেষণার  ফলাফল বিভিন্ন স্থানীয় ও আন্তর্জাতিক জার্ণালে প্রকাশিত হচ্ছে ও সেমিনারে উপস্থাপিত হচ্ছে।

 শিক্ষা কার্যক্রমঃ
(ক) বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের থিসিস পর্ব সমাধা করা হয়।
(খ) আল্ট্রাসনোগ্রাফী, নিউক্লিয়ার মেডিসিন প্রশিক্ষণ প্রদান করা হয়।
 
অফিস সময়সূচীঃ
 
  শনি থেকে বৃহস্পতিবারঃ সকাল ৮:০০ টা থেকে দুপুর ২:৩০ মিনিট
  সাপ্তাহিক ছুটি - শুক্রবার
  সরকারী ছুটির দিনসমূহ বন্ধ।
 
সেবা গ্রহনের নিয়মাবলীঃ
 
(১) যে কোন সেবা গ্রহনের জন্য রোগীকে সংশিষ্ট চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে আসতে হবে।
(২) থাইরয়েড আল্ট্রাসাউন্ড ও হরমোন পরীক্ষার জন্য রোগীকে অবশ্যই দুপুর ১২:০০ টার মধ্যে ইনস্টিটিউটে উপস্থিত থাকতে হবে। এজন্য পূর্বে তারিখ নেওয়ার প্রয়োজন নেই।
(৩) অন্যান্য সকল পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য পূর্বেই তারিখ ও সময় নেওয়া প্রযোজন।

Share with :